Home / রাজনীতি / বকশীবাজার রণক্ষেত্র: খালেদার মামলার পরবর্তী শুনানি ৭ জানুয়ারি

বকশীবাজার রণক্ষেত্র: খালেদার মামলার পরবর্তী শুনানি ৭ জানুয়ারি

২৪ ডিসেম্বর : জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য ফের ৭ জানুয়ারি দিন ধার্য করেছে আদালত। বুধবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৩ এ হাজির হওয়ার পর খালেদা জিয়া সময় আবেদন করেন। ওই আবেদন মঞ্জুর করে বিচারক আবু আহমেদ জমাদ্দার আগামী ৭ জানুয়ারি সাক্ষ্যগ্রহণের পরবর্তী দিন ধার্য করেন।
এর আগে দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে হাজিরা দিতে আদালতে পৌঁছান বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তার আগমনকে কেন্দ্র করে কয়েক হাজার নেতাকর্মী জড়ো হন আদালত প্রাঙ্গণে।

বেগম জিয়া আদালতে পৌঁছানোর কিছুক্ষণ আগে বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) এলাকা থেকে ছাত্রলীগের তিন শতাধিক নেতাকর্মী বিএনপির নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা চালায়।  এ সময় আওয়ামী লীগ ও পুলিশের সঙ্গে বিএনপি কর্মীদের দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় রণক্ষেত্রে পরিণত হয় পুরো বকশীবাজার এলাকা। এ সংঘর্ষ পলাশী মোড়, নাজিম উদ্দিন রোড, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা, চান খাঁর পুল মোড়সহ এর আশপাশের এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। এতে পুলিশসহ প্রায় অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। সংঘর্ষ চলাকালে কয়েকজনকে রাস্তায় ফেলে লাঠিপেটা করতে দেখা যায়। এসময় পুলিশ ব্যাপক টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট ছুড়ে।

এক পর্যায়ে পুলিশ সাউন্ড গ্রেনেড ছুড়ে। সংঘর্ষের মধ্যেই দুপুরে খালেদা জিয়া আদালতে পৌঁছেন। এসময় ছাত্রলীগের কর্মীরা তার গাড়িতেও ইটপাটকেল ছুড়ে।
সংঘর্ষের সময় মেডিকেল এলাকায় একটি গাড়িতে অগ্নিসংযোগ করা হয়।

পুরান ঢাকার বকশীবাজার এলাকার আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৩-এর বিশেষ এজলাসে মামলা দুটির বিচারকাজ চলছে। গত সপ্তাহে বিচারক বাসুদেব রায়কে বদলি করে তাঁর স্থলে আবু আহমেদ জমাদ্দারকে বিচারক হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়।

গত ১৯ মার্চ খালেদা জিয়াসহ নয়জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়। এরপর খালেদা জিয়ার আইনজীবী মামলার বৈধতা ও বিচারক নিয়োগের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে আবেদন করেন। উচ্চ আদালত তা খারিজ করে দেন।

Check Also

সংঘর্ষে যারা জড়িত ওরা আমাদের কেউ না

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি———————————————- মুরাদনগর ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগ——————————————————————————————————————– ‘সংঘর্ষে যারা জড়িত ওরা আমাদের কেউ না’ ...