Home / সম্পাদকীয় / বার্তা সম্পাদকের কলাম / নৈতিক শিক্ষা ও বিদ্যালয়
মোহাম্মদ শাহজামান শুভ সহকারি শিক্ষক বাতাকান্দি উচ্চ বিদ্যালয় তিতাস, কুমিল্লা।

নৈতিক শিক্ষা ও বিদ্যালয়

বর্তমান সমাজের হাজারো সামাজিক সমস্যা (ইভটিজিং, মাদকাসক্ত, ধূমপান, লিঙ্গ-বৈষম্য, দূর্ণীতি, টেন্ডারবাজি ইত্যাদি) বিদ্যালয়ের সহশিক্ষা কার্যাবলীর মাধ্যমে সমাধান করা সম্ভব। আমরা ছেলে-মেয়েদের বইয়ের তোতাপাখী পড়া মুখস্থ না করিয়ে সৃজনশীল কার্য-ক্রমে অনুপ্রাণিত করে শিক্ষাকে আরো প্রাণবন্ত এবং অর্থবহ করতে পারি।

বিদ্যালয়ে দৈনিক ধর্মগ্রন্থ পাঠ এবং দেশপ্রেমের শপথের মাধ্যমে মন ও মস্তিষ্ক দেশ গঠন উদ্ভুদ্ধ হয় এবং নৈতিক শিক্ষা কার্যত মজবুত হয়। দেশর প্রতি দায়িত্ববোধ অন্তরে জাগ্রত হয়। দেশকে উন্নতের শিখরে পৌছাতে মন্ত্রে দীক্ষিত হয়। আমাদের দেশের বিদ্যালয়গুলোতে ধর্মীয় এবং স্কাঊট শিক্ষকরা এ ব্যাপারে আরো আগ্রহী ভূমিকা পালন করতে পারে। দৈনিক সমাবেশের মাধ্যমে দেশের প্রতি একাত্নতাবোধ, বন্ধুত্বপূর্ণ, সৌহার্দ্যপূর্ণ, ধর্মীয় বিশ্বাস আরো মজবুত কতে পারে। আজকের শিশুরা আগামীদিনের ভবিষ্যৎ। এই শিশুরা একদিন এই দেশ চালাবে। তাই তাদেরকে দেশ চালানো এবং নৈতিক শিক্ষায় শিক্ষিত করতে এখনই উত্তম সময়। এখনই তাদেরকে শিক্ষা দিতে হবে দেশের শান্তি ও সম্বৃদ্ধির।
স্কাঊটের তিনটি মূলনীতির ((১।শ্রষ্টার প্রতি কর্তব্য পালন (আধ্যাত্মিক দিক), ২।অপরের প্রতি কর্তব্য পালন (সামাজিক দিক), ৩।নিজের প্রতি কর্তব্য পালন (ব্যক্তিগত দিক)) মাধ্যমে ছেলে-মেয়েদের শারীরিক, বুদ্ধিবৃত্তিক, সামাজিক, আধ্যাত্মিক ও মানসিক দিকগুলো পরিপূর্ণ অন্তর্নিহিত ক্ষমতা বিকাশ ঘটানো হয়। এতে করে তারা ভারসাম্যপূর্ণ ব্যক্তি, দায়িত্বশীল নাগরিক এবং স্হানীয়, আর্ন্তরজাতিক সম্প্রদায়ের সদস্য হিসেবে জীবন যাপন করতে পারে।

বিদ্যালয়ের ধর্মীয় শিক্ষক দেশের ধর্মীয় ধর্মান্ধতা সম্পর্কে ছেলে-মেয়েদের সচেতনা বৃদ্ধি করতে পারে। সঠিক ধর্মীয় বিশ্বাসের দিকে ধাবিত করতে পারে। অপরের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ জাগাতে পারে। পাড়া-পড়শীর প্রতি নৈতিক দায়িত্ববোধ শিক্ষায় আলোকিত করে সমাজের ইভটিজিং, সন্ত্রাস, দূর্ণীতি দূর করতে পারে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা টেন্ডারবাজি, আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত লোকেরা ফাইল চুরি, ঘুষ বানিজ্য, দূর্ণীতি করে। শিক্ষিত টিনেজরা ইভটিজং করে। মোট কথা দেশের দূর্ণীতির মূলেই রয়েছে জ্ঞানপাপীরা। এই জ্ঞানপাপীরা বিদ্যালয়ের সহশিক্ষা কার্যক্রমের মাধ্যমে এককালে শোধরাতে পারতো। এই জ্ঞানপাপীদের বিদ্যালয়ের দৈনিক ধর্মগ্রন্থ পাঠ এবং দেশপ্রেমের শপথের মাধ্যমে মন ও মস্তিষ্ক দেশ গঠনে উদ্ভুদ্ধ হয়নি।

Check Also

পৃথিবীর সাত সেরা “ভারতি গ্লোবাল ফাইন্ডেশন” এর Award প্রাপ্তদের মধ্যে বাংলাদেশের মোহাম্মদ শাহজামান শুভ একজন

নিজস্ব প্রতিনিধি: জীবনে সফল হতে হলে কিছু জিনিস সবার থেকে একটু আলাদা ভাবে ভাবতে প্রয়োজন ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *