Home / তিতাসের খবর / জিয়ারকান্দি ইউনিয়ন / তিতাসে বাল্যবিবাহের প্রস্তুতিতে কিশোরীর কান্না অতঃপর প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বিয়ে থেকে নিস্তার

তিতাসে বাল্যবিবাহের প্রস্তুতিতে কিশোরীর কান্না অতঃপর প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বিয়ে থেকে নিস্তার

নিজস্ব প্রতিনিধি॥
কুমিল্লার তিতাসে বাল্যবিবাহের প্রস্তুতিতে কিশোরীর কান্না অতঃপর প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বিয়ে থেকে নিস্তার পেল সদ্য সপ্তম শ্রেণি পাস করা রিতা (১২) নামের এক ছাত্রী।
৩ জানুয়ারি শুক্রবার দুপুরে তিতাস উপজেলার জিয়ারকান্দি গ্রামের প্রধান বাড়িতে এক স্কুল পড়ুয়া কিশোরীর বিবাহের আয়োজন করে তার পরিবার। এ খবর পেয়ে প্রশাসনের পক্ষ হতে বৃহত্তর দাউদকান্দি উপজেলা ইভটিজিং, বাল্যবিবাহ ও যৌতুক প্রতিরোধ কমিটির আহ্বায়ক মো. আলী আশরাফ খান সরজমিনে গিয়ে ঘটনার সত্যতা পেয়ে প্রশাসনকে অবগত করেন। তৎক্ষণাৎ তিতাস উপজেলা মহিলা ও শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা শারমীন আরার নির্দেশে স্থানীয় চেয়ারম্যান এই বিয়ে বন্ধের ব্যবস্থা করেন।
জানা যায়, তিতাস উপজেলার জিয়ারকান্দি গ্রামের প্রবাসী মোঃ রইছ প্রধান ও গৃহিণী মোসাঃ রোজিনা বেগমের কিশোরী কন্যা জিয়ারকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রী রিতা আক্তারের বিবাহ ঠিক হয় একই গ্রামের মোঃ মজিদ মোল্লার পুত্র ইসমাইল মোল্লার (১৭) সঙ্গে। এই খবর পেয়ে তিতাস উপজেলা প্রশাসন বিবাহ বন্ধের নির্দেশ দেন স্থানীয় (ভারপ্রাপ্ত) ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শামীম আহমেদকে। শামীম আহমেদ তৎক্ষণাৎ নিজ দায়িত্বে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ পুলিশিং কমিইউনিটির সভাপতি মোঃ খোরশেদ আলম, মোঃ জাকির হোসেন, মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, মোঃ ইসমাইল হোসেন, মোঃ সোহাগ, মোঃ মজিবুর রহমান, মোঃ ছাদির প্রধান, মোঃ মানিক মিয়া, মানবাধিকার সংস্থার সদস্য রোজিনা আক্তার, সাংবাদিক মালীনা আক্তার মিলি, সেতুবন্ধনের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম স্বপন প্রমুখদের উপস্থিতিতে এই বাল্যবিয়ে বন্ধ করে দেন। এসময় চেয়ারম্যান শামীম আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন,‘আমি প্রশাসনের কাছ থেকে দায়িত্ব নিলাম, মেয়ের বয়স ১৮ না হওয়া পর্যন্ত এই বিয়ে হবে না। যদি এর হেরফের হয় তাহলে মেয়ে ও ছেলের পরিবার আইনের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে বাধ্য থাকবে’।
এব্যাপারে তিতাস উপজেলা মহিলা ও শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা শারমীন আরা বলেন,‘যারা প্রশাসনের নির্দেশকে অমান্য করে বাল্যবিয়ের মত অপরাধকে উৎসাহিত করবে তাদেরকে কোনভাবেই ছাড় দেওয়া হবে না। আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল না হলে কেউ আইনের প্রয়োগ থেকে রেহাই পাবে না’। তিনি আরো বলেন,‘ কোন কাজী যদি ভূঁয়া জন্মসনদ দিয়ে বিবাহ নিবন্ধন করেন, তাহলে তাকেও আইনের হাতে সপর্দ করা হবে’।

Check Also

আজ তিতাস উপজেলায় ৪৮ তম জাতীয় স্কুল ও মাদ্রাসার গ্রীষ্মকালীন খেলাধূলার ফাইনাল প্রতিযোগীতা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন – হোমনা-তিতাসের গণ মানুষের নেতা ও মাননীয় জাতীয় সংসদ ...