শিরোনাম :
নবীনগরে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা, শিক্ষাবৃত্তি প্রদান ও শেখ হাসিনা একাডেমিক ভবন উদ্বোধন নবীনগরে ২৫টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে আশ্রয়ণ প্রকল্পের জমি সহ পাকাঘর প্রদান নবীনগরে পিস্তলসহ এক যুবক গ্রেফতার নবীনগরে মাদকাসক্ত ছেলের ছুরির আঘাতে পিতা হাসপাতালে- অবস্থা শঙ্কামুক্ত না হওয়ায় ঢাকায় প্রেরণ  নবীনগর পৌরসভার মেয়র শিব শংকর দাশ ৩ হাজার তালের চারা গাছ রোপন করেছেন নবীনগরে ২দিন ব্যাপী সাহিত্য মেলার উদ্বোধন নবীনগরে তুচ্ছ ঘটনায় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ, আহত ৩০ নবীনগরে দেশীয় অস্ত্র সস্ত্র নিয়ে মুক্তিযোদ্ধার বাড়ীতে হামলা ও ভাংচুর আটক (১)। নবীনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান  ফুল মিয়ার কুলখানি সম্পন্ন নবীনগরে কৃষি মেলার উদ্বোধন
শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৬:৪৩ পূর্বাহ্ন

টাইটানিক মানেই কি বিপর্যয়?

প্রতিনিধির নাম / ১৬২ বার
আপডেট : শুক্রবার, ২৩ জুন, ২০২৩

তিতাস নিউজ ডেস্কঃ 

টাইটানিক মানেই কি বিপর্যয়?
জানেন কি আসল টাইটানিক জাহাজটা কোথায় আছে? না জানলে লেখাটি আপনার জন্যে। আমেরিকার পাশের দেশ কানাডার নাম নিশ্চই শুনেছেন? সেই কানাডার সমুদ্র উপকূল থেকে প্রায় চারশো মাইল দূরে সমুদ্রের নীচে ঘুমিয়ে আছে টাইটানিক। টাইটানিক শব্দের আভিধানিক অর্থ দানবিক বা আসুরিক। যাকে দৈত্যাকৃতিরও বলা যায়।
সেই টাইটানিকের অবস্থান এখন আটলান্টিক মহাসাগরের প্রায় সাড়ে তিন কিলোমিটার গভীরে।
ওশানগেট নামে একটি জনপ্রিয় টুরিজম কোম্পানি আছে। যাদের কাজই গভীর সমুদ্রের নিচে ডুব দিয়ে পর্যটকদের টাইটানিক দেখিয়ে আনা। আর এ জন্যে একেক জনের কাছ থেকে নেয়া হয় বাংলাদেশি টাকায় প্রায় আড়াই কোটি টাকা। চোখ কপালে উঠে যাওয়ার মতো কথা হলেও এটাই সত্যি। টাইকুন বা ধনকুবের না হলে টাইটানিক দেখা সাধ্য ক’জনের আছে?
এই ওশানগেট কোম্পানিকে জনপ্রতি আড়াই কোটি টাকা জমা দিলেই তাদের মিনি সাবমেরিন নিয়ে ডুব দিয়ে দেখতে পারবেন সেই রহস্যময় টাইটানিক। কোম্পানিটি প্রথমে আপনাকে কানাডা থেকে জাহাজে করে আটলান্টিক মহাসাগরের উপর টাইটানিক জাহাজ যেখানে ডুবেছে সেখানে নিয়ে যাবে। তারপর আপনাকে নিয়ে একটা ছোট্ট সাবমেরিনে করে নিয়ে যাবে সমুদ্রের সাড়ে তিন কিলোমিটার গভীরে। এরপর দেখতে পাবেন সেই আকাঙ্খিত টাইটানিক। আর যে সাবমেরিনে করে নেয়া হবে তার নাম টাইটান। এটি এতোই ছোট যে নাবিকসহ মাত্র ৫ যাত্রী চড়তে পারেন এতে।
গত রোববারও ৫ জন নেমেছিলেন মহাসমুদ্রের গভীরে। নামার কিছুক্ষণ পর থেকেই যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন টাইটান। ওই ক্ষুদে ডুবো জাহাজে যে পরিমাণ অক্সিজেন আছে তা বড়জোড় ৯৬ ঘণ্টা বাঁচিয়ে রাখবে আরোহীদের। এরইমধ্যে সেই ডুবোজাহাজকে হন্যে হয়ে খুঁজছে আমেরিকা ও কানাডার কোস্ট গার্ড ও নৌবাহিনী। তবুও নিরুদ্বেশ টাইটান।
টাইটানিকের নামের সঙ্গে মিল থাকাই কি কাল হলো এ ক্ষুদে ডুবো জাহাজের? টাইটানিক মানেই কি তবে বিপর্যয়?


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ