শিরোনাম :
নবীনগর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ডিজিএম এর অপসারণের দাবিতে মানববন্ধন নবীনগরে দুই সন্তান ও আলিশান বাড়ি-ঘর রেখে কন্ট্রাক্টারের হাত ধরে উধাও প্রবাসীর স্ত্রী  নবীনগরে নবনির্মিত শহীদ মিনারের শুভ উদ্বোধন করলেন ইউএনও নবীনগরে মাটি ফেলে খাল দখলের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে গ্রামবাসী বহুল প্রতীক্ষিত নবীনগর-আশুগঞ্জ সড়কের কাজের শুভ উদ্ভোধন সাধক ফকির আফতাবউদ্দিন খাঁ ৮১ তম বাৎসরিক ওরশ পালিত নবীনগরে প্রাথমিক বিদ্যালয় নির্মাণ করতে গিয়ে ৬৮ রাউন্ড গুলি উদ্ধার  নবীনগরে হোপের পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত আলমনগর গ্রামের ৭৫ বছরের পুরাতন বাৎসরিক কালি পূজা ও মন্দির উন্নয়নের পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত  গুরুতর অসুস্থ এডভোকেট জাকারিয়া সরকার তছলিম ভাইয়ের পাশে আমরা কি দাঁড়াতে পারি না ??
সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১০:১৭ অপরাহ্ন

গুরুতর অসুস্থ এডভোকেট জাকারিয়া সরকার তছলিম ভাইয়ের পাশে আমরা কি দাঁড়াতে পারি না ??

প্রতিনিধির নাম / ২৯ বার
আপডেট : শুক্রবার, ২০ জানুয়ারী, ২০২৩

Ôèগুরুতর অসুস্থ এডভোকেট জাকারিয়া সরকার তছলিম ভাইয়ের পাশে আমরা কি দাঁড়াতে পারি না ?? ?

এডভোকেট জাকারিয়া সরকার তছলিম। নবীনগরের কৃতি সন্তান। পেশায় সুপ্রিম কোর্টের একজন আইনজীবী।
আশির দশকে নবীনগরের ক্রীড়া, সংস্কৃতি ও সাংবাদিকতায় সর্বমহলে একটি গ্রহণযোগ্য সুপরিচিত নাম ছিলো এই জাকারিয়া সরকার তছলিম ভাই। নবীনগর প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, নবীনগরের বহুল আলোচিত ক্রীড়া সংগঠক ‘মিশুক’ এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, নবীনগর শিল্পকলা একাডেমি, ব্যতিক্রম থিয়েটার, জাগরণী শিল্পীগোষ্ঠীসহ নবীনগরের বহু সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে এই তছলিম ভাই ওতপ্রোতভাবে জড়িত ছিলেন। তছলিম ভাই হলেন নবীনগরের দুই দুইবারের জনপ্রিয় উপজেলা চেয়ারম্যান জিয়াউল হক সরকারের আপন ছোট ভাই।


সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী তথা সুপ্রিম কোর্টের সাবেক ‘সহকারী এটর্ণি জেনারেল’ হিসেবে সুনামের সঙ্গে দায়িত্ব পালনকারী এডভোকেট জাকারিয়া সরকার তছলিম ভাই বর্তমানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (পিজি হসপিটাল) গত দুই মাস ধরে গুরুতর অসুস্থ হয়ে কাঁতড়াচ্ছেন।

জানা যায়, জাকারিয়া সরকারত ছলিম গত দুই মাস ধরে হাসপাতালের বিছানায় শয্যাশায়ী।  তিনি বেশীর ভাগ সময়ে হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে ডুকরে ডুকরে কাঁদছিলেন।,

জাকারিয়া সরকার তসলিম জানান, ‘মাস তিনেক আগে শরীরে এলার্জি দেখা দেওয়ায়, একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে চিকিৎসা নেই। কিন্তু সেখানকার উল্টাপাল্টা চিকিৎসা ও ডাক্তারের দেয়া ভুল ইনজেকশনে আমার শরীরে ওষুধের মারাত্মক রিএ্যাকশন হয়। এরপরই আমার দুই পায়ে ভয়াবহ পঁচন ধরে।

তিনি বলেন, এরপর কিছুদিনের মধ্যেই আমি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে আমাকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এনে ভর্তি করানো হয়। এই হাসপাতালে প্রায় দুই মাস ধরে ভর্তি আছি, চিকিৎসা চলছে।
কথা বলার সময় জাকারিয়া সরকার তছলিম বারবার চোখের জল মুছতে মুছতে বললেন, শরীরের যে পরিস্থিতি হয়েছে, তাতে বাঁচবো কিনা জানিনা। তবে এদেশে আমার মতো একজন আইনজীবীর সাথেও যেহেতু ডাক্তার এমন ভুল চিকিৎসা করে আমাকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছেন। তখন সাধারণ মানুষ যে প্রতিনিয়ত কতটা ভুল চিকিৎসায় দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন, সেটি হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে শুয়ে কিছুটা হলেও অনুভব করতে পারছি।’ জীবনে কোনদিন কারও কোন ক্ষতি করিনি, যতটা পেরেছি মানুষের কল্যাণে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছি। এ জীবনে কখনও অসৎ হইনি। সৎ পথে থেকে যা রোজগার করেছি, তা দিয়েই সংসার চালিয়েছি। রোজগারের টাকা থেকে কিছুই করতে পারিনি। কারণ, রোজগার যা করেছি, সংসার চালানোর পর রোজগারের বাকী টাকা দিয়ে মানুষের দু:সময়ে সাধ্য অনুযায়ি উপকারের চেষ্টা করে গেছি। কিন্তু আজ কয়েক মাস ধরে আমার ইনকাম বন্ধ। অথচ প্রতিদিন ১০ হাজার টাকার উপর আমার চিকিৎসায় খরচ হচ্ছে। এখন চোখে মুখে অন্ধকার দেখছি। সামনের দিনগুলোতে কিভাবে যে কি করবো, কিছুই বুঝতে পারছিনা। তোমরা সবাই আমার জন্য দোয়া কইরো।

বন্ধুগণ,
আসুন, আমরা যারা নবীনগরের এই প্রিয় মানুষ তছলিম ভাইকে ভালোবাসি, শ্রদ্ধা করি কিংবা যাঁরা তাঁকে স্নেহ করেন- সবাই একত্রিত হয়ে প্রিয় এই ভালোবাসার ভাইটির আশু রোগমুক্তির জন্য প্রভু দয়াময়ের কাছে দুই হাত তুলে সমস্বরে প্রার্থনা করি।
পাশাপাশি আসুন, সকলে মিলে পরোপকারী বন্ধু, এই হৃদয়বান সামাজিক মানুষটির পাশে শক্তভাবে দাঁড়াই।

লেখক- সাংবাদিক গৌরাঙ্গ দেবনাথ অপু।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ