Home / তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি / কক্ষপথে রহস্যময় বস্তু পাঠিয়েছে রাশিয়া: নতুন মহাকাশ যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছে!

কক্ষপথে রহস্যময় বস্তু পাঠিয়েছে রাশিয়া: নতুন মহাকাশ যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছে!

২৬ জুলাই (তিতাস নিউজ): রাশিয়া নতুন মহাকাশ যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে ধারণা করছেন মার্কিন সামরিক পর্যবেক্ষকরা। ২০১৪ সালে মে মাস থেকে তিনটি যোগাযোগ কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠিয়েছে ক্রেমলিন। কিন্তু  এগুলোকে পরীক্ষামূলক অস্ত্র হিসেবে দাবি করছেন মার্কিন সামরিক বিশ্লেষকরা।

কসমম-২৪৯১, ২৪৯৯ এবং ২৫০৪ নামের এ তিন কৃত্রিম উপগ্রহকে যোগাযোগ উপগ্রহ হিসেবে  মহাকাশে পাঠানো হয়েছে। এগুলো রোডনিক যোগাযোগ উপগ্রহের পর্যায়ে পড়ে বলে উল্লেখ করেছে ক্রেমলিন। সাধারণ ভাবে এ জাতীয় যোগাযোগ উপগ্রহ তিনটি করেই মহাকাশে পাঠানো হয়। কিন্তু এ ক্ষেত্রে চতুর্থ উপগ্রহ পাঠানো হয়েছে বলে আমেরিকাকে জানিয়েছে রাশিয়া।

অন্যান্য যোগাযোগ উপগ্রহের মতই রোডনিক উপগ্রহের কোনো ইঞ্জিন বসানো থাকে না। ফলে এ জাতীয় উপগ্রহকে একবার কক্ষপথে স্থাপন করা হলে তা থেকে সরে আসার বা রদবদল করার কোনো উপায় আর থাকে না। কিন্তু মার্কিন সামরিক বিষয়ক সাংবাদিক ডেভিড অ্যাক্স জানান, ভূমি থেকে মার্কিন পর্যবেক্ষকরা বিস্মিত হয়ে দেখতে পেয়েছেন, রুশ চতুর্থ উপগ্রহটি নিজ কক্ষপথের সামান্য রদবদল করতে পেরেছে।

গত দেড় বছরে রাশিয়া আকারে ছোট-ফ্রিজের সমান আরো দু’টি রহস্যময় বস্তু মহাকাশে পাঠিয়েছে। তীব্র গতি সম্পন্ন এ সব উপগ্রহ অন্যান্য উপগ্রহের বেশ কাছাকাছি যেতে সক্ষম বলে মনে করা হচ্ছে। ফলে অন্যান্য উপগ্রহের বিরুদ্ধে গোয়েন্দা তৎপরতা যেমন চালাতে পারবে প্রয়োজনে সেগুলোকে ধ্বংস বা ছিনতাই করতেও পারবে বলে আশংকা করছেন মার্কিন পর্যবেক্ষকরা। তারা  আরো দাবি করছেন, রুশ এ সব উপগ্রহের সক্ষমতা দেখে এটি পরিষ্কার হয়ে উঠেছে  যে এগুলোকে উপগ্রহ বিরোধী অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করা সম্ভব।

অবশ্য এ কাজ কেবল রাশিয়া একক ভাবেই করছে না। বরং আমেরিকা, জাপান, চীন এবং সুইডেন এরই মধ্যে এ জাতীয় পরীক্ষা চালিয়েছে। আর এ সবই করা হয়েছে কৃত্রিম উপগ্রহ রক্ষণাবেক্ষণের নামেই।

Check Also

জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৭ এ তিতাস উপজেলার শ্রেষ্ঠ শ্রেণি শিক্ষক নির্বাচিত হয়েছে বাতাকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক শুভ

জেলা প্রতিনিধিঃ আজ তিতাস উপজেলার মিলনায়তনে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৭ এ তিতাস উপজেলার ফলাফল ঘোষণা করেণ ...